1. mahbubur2527@gmail.com : Mahbubur Rahman Sohel : Mahbubur Rahman Sohel
  2. saidur.yc@gmail.com : SAIDUR RAHMAN : SAIDUR RAHMAN
  3. jannatulakhi1123@gmail.com : Jannatul akhi Akhi : Jannatul akhi Akhi
  4. msibd24@gmail.com : Fazlul Karim : Fazlul Karim
  5. Mofazzalhossain8@gmail.com : Mofazzal Hossain : Mofazzal Hossain
  6. saidur.yc@hotmail.com : Saidur Rahman : SAIDUR RAHMAN
  7. jim42087070@gmail.com : Lokman Hossain : Lokman Hossain
  8. galib.ip2@gmail.com : Al Galib : Al Galib
  9. sikhanphd3@gmail.com : Shafiqul Islam : Shafiqul Islam
আজ ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ সময় বিকাল ৪:৫০
শিরোনাম
মনোহরদীতে আজকের পত্রিকার প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত সবখানে মাস্ক পড়া বাধ্যতামুলক করে মন্ত্রী পরিষদের ৬ নির্দেশনা ঝালকাঠির রাজাপুরে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার কল্যান এসোসিয়েশন উপজেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত। চাচিকে মারধরের জেরে যুবকের দুই কব্জি কেটে নিলেন ফুপা ফুলবাড়ীতে মোটরসাইকেল কিনে না দেয়ায় কিশোরের আত্নহত্যা ইন্টারনেট ছাড়াই পাঠানো যাবে ই-মেইল, জানুন কীভাবে ঝালকাঠির রাজাপুরে জঙ্গী সন্দেহে এক দাখিল পরীক্ষার্থী’কে আটক করেছে র‌্যাব-৩ পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই যুবক মারা গেছেন। মুত্র ত্যাগ আর নাট খোলার ছবি নেট দুনিয়ায় ভাইরাল কুড়িগ্রামের সত্য সংঘের উদ্যোগে বিশ্ব মাদক বিরোধী দিবস পালিত

২য় ধাপে ইউপি নির্বাচনে জয়ী হলেন যারা

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, নভেম্বর ১২, ২০২১,
  • 103 দেখুন

দ্বিতীয় ধাপে দেশের ৮৩৫টি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর)। এই ধাপে ২৬টি ইউপিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এবং বাকিগুলোতে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্য নিয়ে প্রতিবেদন।

রাজশাহী :

রাজশাহীর ১৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছেন সরকার দলীয় সমর্থক প্রার্থীরা। এর মধ্যে নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েও নির্বাচিত হয়েছেন কেউ কেউ। তবে তারাও আওয়ামী লীগের সমর্থক।

গোদাগাড়ীতে আওয়ামী লীগের ছয়জন দলীয় প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। আর নৌকার বিদ্রোহী হয়ে লড়াই করে জিতেছেন তিনজন।

এদের মধ্যে গোদাগাড়ী সদর ইউনিয়নে মাসিদুল গণি মাসুদ (আওয়ামী লীগ), মোহনপুর ইউনিয়নে খাইরুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ), পাকড়ী ইউনিয়নে জালাল উদ্দিন (আওয়ামী লীগ), রিশিকুল ইউনিয়নে মোকলেসুর রহমান মুকুল (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), মাটিকাটা ইউনিয়নে সোহেল রানা (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), দেউপাড়া ইউনিয়নে বেলাল উদ্দিন সোহেল (আওয়ামী লীগ), বাসুদেবপুর ইউনিয়নে নজরুল (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী), চরআষাড়িয়াদহে আশরাফুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ) ও গোগ্রাম ইউনিয়নে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা মজিবুর রহমান।

এদিকে, তানোরে ৬টি ইউনিয়নের মধ্যে চারটিতে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী ও দুটিতে বিদ্রোহীরা জয়ী হয়েছেন।

এর মধ্যে চান্দুড়িয়া ইউনিয়নে মজিবর রহমান (আওয়ামী লীগ), বাঁধাইড় ইউনিয়নে আতাউর রহমান (আওয়ামী লীগ), কলমা ইউনিয়নে খাদিমুন্নবী চৌধুরী বাবু (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী), পাঁচন্দর ইউনিয়নে আবদুল মতিন (আওয়ামী লীগ), তালন্দ ইউনিয়নে নাজিমুদ্দিন বাবু (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী) ও কামারগাঁ ইউনিয়নে ফজলে রাব্বী ফরহাদ (আওয়ামী লীগ)।

রংপুর :

রংপুরের পীরগাছা ও পীরগঞ্জ উপজেলার ১৮টি ইউনিয়নের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১১টিতে আওয়ামী লীগ, একটিতে জাতীয় পার্টি এবং বাকি ছয়টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। নির্বাচিত ছয় স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে বিএনপিপন্থী তিনজন, জাতীয় পার্টি ও জামায়াতে ইসলামীর একজন করে রয়েছেন।

এর মধ্যে পীরগাছায় আওয়ামী লীগের তিন, জাতীয় পার্টির এক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিএনপি ও জামায়াত) চারজন নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদিকে পীরগঞ্জের ৮টিতে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র দুইজন চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী রয়েছেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার সূত্রে জানা গেছে, পীরগাছা উপজেলার পারুল ইউনিয়নে তোফাজ্জল হোসেন (নৌকা), ইটাকুমারী আবুল বাশার (নৌকা), অন্নদানগরে আমিনুল ইসলাম (নৌকা), কৈকুড়িতে নুর আলম (লাঙ্গল), পীরগাছা সদরে মোস্তাফিজুর রহমান রেজা (স্বতন্ত্র-বিএনপি), ছাওলায় নজির হোসেন (স্বতন্ত্র-বিএনপি), কান্দিতে আব্দুস ছালাম আজাদ জুয়েল (স্বতন্ত্র-বিএনপি) এবং তাম্বুলপুর ইউনিয়নে বজলুর রশিদ মুকুল (স্বতন্ত্র-জামায়াত) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এ ছাড়া পীরগঞ্জের চৈত্রকোল ইউনিয়নে আরিফুজ্জামান শাহ্ (নৌকা), ভেন্ডাবাড়িতে সাদেকুল ইসলাম সাদেক (নৌকা), কুমেদপুরে আমিনুল ইসলাম (নৌকা), টুকুরিয়ায় আতাউর রহমান (নৌকা), শানেরহাটে মেজবাহুল (নৌকা), পাঁচগাছীতে বাবলু মিয়া (নৌকা), চতরাতে এনামুল হক শাহীন (নৌকা), কাবিলপুরে রবিউল ইসলাম (নৌকা), বড়দরগাহ্ ইউনিয়নে শিলা আক্তার (স্বতন্ত্র) এবং মদনখালীতে নূর মোহাম্মদ মঞ্জু (স্বতন্ত্র) বিজয়ী হয়েছেন।

খুলনা :

খুলনা জেলার ২৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ১০টিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী, ১০টিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এবং ৫টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এই পাঁচজন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত।

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, দ্বিতীয় ধাপে খুলনার ডুমুরিয়া, রূপসা, ফুলতলা ও বটিয়াঘাটা উপজেলার ২৫টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ১১৪ জন প্রার্থী। ভোটগ্রহণ শেষে বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে।

বরিশাল :

দ্বিতীয় ধা‌পের ইউ‌নিয়ন প‌রিষদ নির্বাচ‌নে ব‌রিশাল জেলার ১২টির ম‌ধ্যে ৯টি‌তে জয় পে‌য়ে‌ছে আওয়ামী লীগ ম‌নোনীত নৌকা প্রতী‌কের প্রার্থীরা। এ ছাড়া এক‌টি‌তে হাতপাখা ও দু‌টি‌তে সতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয়ী হ‌য়ে‌ছে। ‌বিষয়‌টি নি‌শ্চিত ক‌রে‌ছেন স্ব স্ব উপ‌জেলা নির্বাচন ও রিটা‌র্নিং কর্মকর্তারা।

অন্যদিকে নির্বাচনে ভোটের মাঠের লড়াইয়ের আগেই বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে বিনা প্রতিদন্দিতায় বিজয়ী হয়েছেন।

যাদের মধ্যে রাজিহার ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ইলিয়াস তালুকদার, বাকাল ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বিপুল দাস, বাগধা ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আমিনুল ইসলাম বাবুল ভাট্টি, গৈলা ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শফিকুল হোসেন ও রত্নপুর ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী গোলাম মোস্তফা সরদার এককভাবে বিজয়ী হয়েছেন।

চট্টগ্রাম :

চট্টগ্রামের ৩ উপজেলার ৩৯টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ১৮টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে ১৩টিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও ৫টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয় পেয়েছে।

এ ছাড়া ১৯টি ইউনিয়নে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা। বাকি ২টি ইউনিয়নে আদালতের নির্দেশে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন স্থগিত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) ভোটগ্রহণ শেষে তিন উপজেলার দায়িত্বরত নির্বাচন কর্মকর্তা ও নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসাররা ফলাফল ঘোষণা করেন।

সীতাকুণ্ড উপজেলায় ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রার্থীরা জয়লাভ করেন। বাকি ৪ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সবগুলোতে জয় পেয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা।

অন্যদিকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী প্রার্থীরা হলেন-সৈয়দপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম নিজামী, মুরাদপুর ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান এসএম রেজাউল করিম বাহার, কুমিরা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান মোরশেদ হোসেন চৌধুরী ও সোনাইছড়ি ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান মনির আহমেদ এবং ভাটিয়ারি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী নাজিম উদ্দিন।

এদিকে মিরসরাই উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নের মধ্যে ১৩টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়। বাকি ৩টি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীরা।

সিরাজগঞ্জ :

সিরাজগঞ্জ সদরের ৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৩টিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়্যারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। বাকী ৫টিতে গতকাল (বৃহস্পতিবার) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ সদরে বাগবাটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম। বহুলী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ফরহাদ হোসেন শেখ। খোকশাবাড়ী ইউনিয়নে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রাশিদুল ইসলাম রশিদ মোল্লা। শিয়ালকোল ইউনিয়নে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সেলিম রেজা। কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুস সবুর।

রায়গঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে ৩টিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। বাকী ৬টিতে গতকাল (বৃহস্পতিবার) নির্বাচিত জয়ীরা হলেন-রায়গঞ্জ উপজেলার ঘুড়কা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. জিল্লুর রহমান তালুকদার, ধুবিল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত মিজানুর রহমান রাসেল, নলকা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবু বকর সিদ্দিক, পাঙ্গাসী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রফিকুল ইসলাম নান্নু, সোনাখাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত আবু হেনা মোস্তফা রিপন, চান্দাইকোনা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত আব্দুল হান্নান খান।

কুড়িগ্রাম :

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। এর মধ্যে চর ভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নে বিজয়ী মানিক উদ্দিন (হাত পাখা) নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এনামুল হক রোকন (নৌকা)।

তিলাই ইউনিয়নে বিজয়ী কামরুজ্জামান (নৌকা), নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী ফরিদুল হক শাহিন (ঘোড়া)। বঙ্গসোনাহাট ইউনিয়নে বিজয়ী মাইনুল ইসলাম লিটন (নৌকা), নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি শাহজাহান আলী মোল্লা (লাঙ্গল)।

আন্ধারিঝাড় ইউনিয়নে বিজয়ী জাবেদ আলী মন্ডল (লাঙ্গল), নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফজলুল হক (নৌকা)। জয়মনিরহাট ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী আব্দুল ওয়াদুদ (মোটরসাইকেল), নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাদল খন্দকার স্বতন্ত্র।

এ ছাড়া বলদিয়া ইউনিয়নে বিজয়ী মোজাম্মেল হক বেপারী (লাঙ্গল), নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি স্বতন্ত্র প্রার্থী মোখলেছুর রহমান এবং পাইকের ছড়া ইউনিয়নে বিজয়ী আব্দুর রাজ্জাক (লাঙ্গল) নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফারুক হোসেন (নৌকা)।

নীলফামারী :

নীলফামারীর সদর উপজেলার ১১টি ইউপি নির্বাচনে ২টিতে নৌকা ও ৯টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। বৃহস্পতিবার শান্তিপূর্ণ নির্বাচন শেষে গভীর রাতে ওই ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে নৌকা প্রতীকে গোড়গ্রাম ইউনিয়নে মাহবুব জর্জ ও সংগলশী ইউনিয়নে কাজী মোস্তাফিজার রহমান বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এ ছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লক্ষ্মীচাপ ইউনিয়নে আমিনুর রহমান, পলাশবাড়ি ইউনিয়নে ইব্রাহিম তালুকদার, কচুকাটা ইউনিয়নে আব্দুর রউফ, রামনগর ইউনিয়নে ওবায়দুল হক, পঞ্চপুকুর ইউনিয়নে ওয়াহেদুল ইসলাম, সোনারায় ইউনিয়নে নূরুল ইসলাম, চওড়া বড়গাছা ইউনিয়নে আবুল খায়ের বিটু, চড়াইখোলা ইউনিয়নে মাসুম রেজা, চাপড়া সরমজানি ইউনিয়নে জাহাঙ্গীর আলম লালন ফকির।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন বেসরকারিভাবে ওই ফলাফল ঘোষণা করেন।

পঞ্চগড় :

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলা দ্বিতীয় ধাপের অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৭ ইউনিয়নের মধ্যে ২টিতে আওয়ামী লীগের নৌকার মনোনীত প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এদের মধ্যে বিভিন্ন প্রতিক নিয়ে ৫টি ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ৫ জন।

বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) রাতে সাড়ে ১১টার সময় তেঁতুলিয়া উপজেলা পরিষদ হল রুমে বেসরকারিভাবে এই ফলাফল ঘোষণা করেন তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী হোসেন।

চুয়াডাঙ্গা :

চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা ও জীবননগর উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী ও ২টি ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর থেকে সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রতিটি কেন্দ্রের ফলাফল আসতে শুরু করে।

দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষ ও জীবননগর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণা করা হয়। দামুড়হুদা উপজেলায় ৪টি ও জীবননগর উপজেলায় ১টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

কুষ্টিয়া :

কুষ্টিয়ার দুই উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে ভোট গণনা শেষে বিজয়ীদের নাম বেসরকারিভাবে ঘোষণা করা হয়েছে। এতে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে ছয়জন ও আওয়ামী স্বতন্ত্র বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীক নিয়ে তিনজন বিজয়ী হয়েছে। বাঁকি দুটিতে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

ইউপি নির্বাচনে মিরপুরে বিজয়ীরা হলেন-বারুইপাড়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে শফিকুল ইসলাম মন্টু, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে সাইদুর রহমান, আমলা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে একলেমুর রেজা সাবান, মালিহাদ ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে আকরাম হোসেন, আমবাড়ীয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে সাইফুদ্দিন মকুল (সাইফুল) ও কুর্শা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে আব্দুল হান্নান।

এ ছাড়া ফুলবাড়ীয়া ইউনিয়নে আওয়ামী বিদ্রোহী প্রার্থী নুরুল ইসলাম, তালবাড়ীয়া ইউনিয়নে আওয়ামী বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল হান্নান মণ্ডল ও ছাতিয়ান ইউনিয়নে আওয়ামী বিদ্রোহী প্রার্থী কবির হোসেন বিশ্বাস আনারস প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন। অন্যদিকে সদরপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল ইসলাম ও পোড়াদহ ইউনিয়নে ফারুকুজ্জামান জন আনারস প্রতীকে জয় লাভ করেছেন।

এদিকে, ভেড়ামারা উপজেলার ছয় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত চেয়ারম্যানরা হলেন-বাহাদুরপুর ইউনিয়নে সোহেল রানা পবন (নৌকা), মোকারিমপুর ইউনিয়নে আব্দুস সামাদ (নৌকা), বাহিরচর ইউনিয়নে রওশন আরা বেগম (নৌকা), চাঁদগ্রাম ইউনিয়নে আব্দুল হাফিজ তপন (মশাল), ধরমপুর ইউনিয়নে শামছুল হক (আনারস) ও জুনিয়াদহ ইউনিয়নে হাসানুজ্জামান হাসান (আনারস) নির্বাচিত হয়েছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর

https://shadhinbangla16.com © All rights reserved © 2022

theme develop by shadhinbangla16.com
themesbazarshadinb16
bn Bengali
X