1. mahbubur2527@gmail.com : Mahbubur Rahman Sohel : Mahbubur Rahman Sohel
  2. saidur.yc@gmail.com : SAIDUR RAHMAN : SAIDUR RAHMAN
  3. jannatulakhi1123@gmail.com : Jannatul akhi Akhi : Jannatul akhi Akhi
  4. msibd24@gmail.com : Saiydul Islam : Saiydul Islam
  5. Mofazzalhossain8@gmail.com : Mofazzal Hossain : Mofazzal Hossain
  6. saidur.yc@hotmail.com : Saidur Rahman : SAIDUR RAHMAN
  7. jim42087070@gmail.com : Lokman Hossain : Lokman Hossain
  8. galib.ip2@gmail.com : Al Galib : Al Galib
  9. sikhanphd3@gmail.com : Shafiqul Islam : Shafiqul Islam
আজ ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ সময় বিকাল ৫:১৪
শিরোনাম
তালায় রাইস ট্রান্সপ্ল্যান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপণ উদ্বোধন বাগেরহাটের চিতলমারীতে তুচ্ছ ঘটনায় শিশু ও নারীর ওপর হামলা আহত -৫ মৌলভীবাজারে অনলাইন প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণের সনদপত্র বিতরণ মৌলভীবাজারে পরিবহন শ্রমিককে ট্রাফিক কর্তৃক মারধরের ঘটনায় সড়ক অবরোধ পলাশবাড়ীতে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় সমালোচনার ঝড়! ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় ভিক্ষুক পুণঃবাসনে সহয়তা প্রদান ! সৌদি আরব তাবুক শহর  আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের সুস্থতা কামনায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিল। মনোহদীতে মোটরসাইকেল দূর্ঘটনায় অজ্ঞাত এক বৃদ্ধা নিহত। বাগেরহাটে জনশুমারি ও গৃহগননার অবহিতকরন সভা শরনখোলায় দারিদ্র বিমোচন ও টেকসই উন্নয়নের লক্ষে প্রসপারিটি প্রকল্পের সভা অনুষ্ঠিত

বাগেরহাটের আদুরী এখন সানি ইসলাম, এলাকায় তোলপার

Reporter Name
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, জুন ৫, ২০২০,
  • 203 দেখুন

আবু-হানিফ, বাগেরহাট অফিসঃ
বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার ধানসাগর ইউনিয়নের আদুরী আক্তার (১৯) নামে এক যুবতী মেয়ে এখন যুবকে পরিনত হয়েছে।এ ঘটনার জানা জানির পর এলাকায় তোলপার সৃষ্টি হয়েছে। এলাকার সবাই আদুরী থেকে সানি ইসলামে পরিনত হওয়া যুবককে একনজর দেখতে তার বাড়ীতে ভিড় করছে।

এদিকে গত তিন বছর আগে আদুরী থেকে সানিতে পরিনত হওয়া যুবক সানি এখন বিবাহিত। তার স্ত্রী বর্তমানে ৬ মাসের অন্তঃসত্বা। ২০১৭ সালের প্রথমদিকে চট্রগ্রামের রাঊজানে বিবাহ করেন তিনি। আদুরী এখন মা-বাবার দেওয়া নাম পরিবর্তন করে শশুর বাড়ির দেয়া নাম সানি ইসলাম নামে পরিচয় দিয়ে যাচ্ছেন।

সানি ইসলাম উপজেলার ধানসাগর ইউনিয়নের খেজুর বাড়ীয়া গ্রামের স’মিল শ্রমিক ছগির মুন্সীর একমাত্র মেয়ে, যে বর্তমানে ছেলে। ছগির মুন্সীর তিন ছেলেমেয়ের মধ্যে আদুরী মেঝো। ছগির মুন্সী বলেন, ২০১০ সালে পরিবারের সবাইকে নিয়ে কাজের সন্ধানে চট্রগ্রামে যাই।

সেখানে গিয়ে ছোটোখাটো একটি ব্যবসা শুরু করি। এরপর ২০১৭ সালের দিকে দেখি আদুরী মেয়েদের সঙ্গ দিতে শুরু করে। আর ছেলেদের মত আচরণ করতে থাকে। এসব দেখে আমার লজ্জা লাগে। এসময় ভাবতে থাকি সমাজে মুখ দেখাবো কি করে। এজন্য ওরে সারাক্ষণ ঘরের মধ্যে থাকতে বলতাম।

কিন্তু আদুরী আমাদের কোনো কথাই শোনেনা। রাতে পাশের ঘরে বান্ধবীর বাসায় ঘুমতে চায়। ওর এমন আচার আচরণ দেখে বিরক্ত হয়ে সবসময় বকাঝকা করতে থাকি। তাতেও কোনো কাজ হয়না। এরইমধ্যে একদিন পাশের ঘরের ওর এক বান্ধবী এসে বলে আদুরী সত্যি ছেলে হয়ে গেছে। ও আমার সাথে খারাপ আচরণ করছে তাই আমি বুঝেছি।

তারপর থেকে ও অন্য এলাকায় বাসা নিয়ে থাকা শুরু করে আর গার্মেন্টসে চাকুরী করে। আমারা আড়াই বছর আগে আদুরীকে চট্রগ্রামে রেখে পরিবারের অন্য সবাই বাড়িতে চলে আসি। এরপর গত ৫ মে জানতে পারি আদুরী বিবাহ করেছে এবং বউ নিয়ে বাড়িতে আসতে চায়।

১০ মে স্ত্রী পুতুলকে নিয়ে আদুরী মংলায় ওর মামার বাসায় ওঠে। সেখানে দুদিন থাকার পর বাড়িতে আসলে করোনার কারণে ওদের ১৪ দিন আমার বাবার বাড়িতে আলাদা থাকতে বলি। তবে আমি বাবা হয়ে ওর সম্পর্কে সবকিছু জেনে দেখলাম ও এখন আর আমাদের মেয়ে নাই পুরাপুরি ছেলে হয়ে গেছে।

এছাড়া ওর স্ত্রী এখন ৬ মাসের গর্ভবতী। মেয়ে থেকে পরিবর্তন হয়ে কিভাবে ছেলে হলো তা জানতে চাইলে আদুরী জানান, প্রায় সাড়ে তিনবছর আগে থেকে আমার শরীরের ভেতর মেয়েদের প্রতি আকর্শন জাগতে শুরু করে। আস্তে আস্তে লিঙ্গ পরিবর্তন হতে থাকে। এরপর প্রতিনিয়ত স্বপ্নদোষ হয়।

এরকম করতে করতে এক পর্যায় আমি সম্পূর্ন পুরুষ হয়ে যাই। তবে একটা সমস্যা ছিলো, আমার ডান পাশের (অন্ডাকোষ) সপ্তাহে সপ্তাহে ব্যাথা করতো। সেটা পরবর্তীতে ডাক্তার দেখালে ঠিক হয়ে যায়। কিন্তু আমার এ পরিবর্তন বাড়ির কেউ বিশ্বাস করতে চায়না।

তাই গত দুই বছর আগে চট্রগামের রাউজানের ইসামনি পুতুল (১৭) নামে একটি মেয়েকে তার পরিবারের সম্মতিতে বিবাহ করি। এরপর আমার স্ত্রী প্রেগন্যান্ট হলে তাকে নিয়ে বাড়িতে আসি। যাতে সবাই বিশ্বাস করে যে আমি আর তাদের মেয়ে নাই।

আমার স্ত্রী এখন ৬ মাসের অন্তঃসত্বা। এ ব্যাপারে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন ও হরমোন বিশেষজ্ঞ ডা. রফিকুজ্জামান বলেন, আমরা সাধারণত ছেলে থেকে মেয়ে হতে চাওয়া রোগীদের ফ্রি চিকিৎসা করিয়ে থাকি।

তবে মেয়ে থেকে ছেলে হওয়া কিটিক্যাল বিষয়। এটা কিভাবে হলো না দেখে বলা যাবেনা। তবে মনে হচ্ছে তার পরিবার আগে থেকে লুকিয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

https://shadhinbangla16.com © All rights reserved © 2020

theme develop by shadhinbangla16.com
themesbazarshadinb16
bn Bengali
X